পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ লেবুর উপকারিতা

সাধারণত আমরা খাবারের স্বাদ বৃদ্ধিতে লেবু ব্যবহার করে থাকি। এমন অনেকেই আছেন, যারা প্রতিবারের খাবারের সাথে স্বাদ বৃদ্ধির কারণে লেবু নিয়ে থাকে। আবার অনেকে লেবুর আচার করে খায়। তবে অনেকেই জানেনা লেবুর উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ সম্পর্কে। ভিটামিন- সি সমৃদ্ধ লেবুর রয়েছে অনেক অনেক পুষ্টি উপাদান ও অসাধারণ উপকারিতা।
লেবুর এই পুষ্টিগুণ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং সুস্বাস্থ্য ও সুস্থতা বজায় রাখতে সহায়তা করে। জীবনধারায় এবারের আলোচনার বিষয়বস্তু লেবুর উপকারিতা সম্পর্কে।

লেবুর উপকারিতা

ক্যান্সার প্রতিরোধে :
লেবুতে রয়েছে ক্যান্সার প্রতিরোধী বিভিন্ন পুষ্টি উপাদান। তাই নিয়মিত খাদ্য তালিকায় লেবু রেখে আমরা ক্যান্সার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে পারি।

পাকস্থলী সুস্থ রাখতে :
পেটের সমস্যা সমাধানে লেবু কার্যকরি ভূমিকা রাখে। মূলত পেটের বিভিন্ন সমস্যার মধ্যে ডায়রিয়া, বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য ইত্যাদি দূরীকরণে সকালে খালি পেটে এক গ্লাস পানিতে লেবু ও লবণ মিশিয়ে খেলে এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। লেবু-পানির সাথে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে খেলে বেশি উপকারিতা পাওয়া যায়।

ফুসফুস ভালো রাখতে :
শরীরের বিষাক্ত দ্রব্য বের করে দেয় লেবু। তাছাড়া ফুসফুস ভালো রাখতেও সহায়তা করে। এমনকি শরীরের চর্বি ও লিপিডের পরিমাণ কম রাখে।

ক্ষত নিরাময়ে :
লেবুতে রয়েছে অধিক পরিমাণে ভিটামিন। যার ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। তাছাড়া বিভিন্ন ভাইরাসজনিত রোগ যেমন জ্বর, সর্দি, ঠান্ডা ইত্যাদি নিরাময়ে কার্যকরি ভূমিকা রাখে। তাছাড়া মূত্রনালীর ক্ষতে নিরাময়েও সহয়তা করে।

হাইপার টেনশন হ্রাস করে :
যাদের শরীরে পটাসিয়ামের ঘাটতি রয়েছে তারা সহজেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়। তবে লেবুতে যথেষ্ট পরিমাণ পটাসিয়াম রয়েছে যার ফলে হাইপার টেনশন কমতে থাকে।

ত্বকের যত্ন :
প্রাকৃতিক পরিষ্কারক হিসেবে বেশ পরিচিত লেবুর রস। মধুর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে মুখে মাখলে মুখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। লেবুর রস ত্বকে মাখলে ত্বকের অতিরিক্ত তেল অপসারণ হয়, ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পায়, বয়সের ছাপ কমিয়ে ত্বকের রং সতেজ এবং উজ্জ্বল রাখে।
সাধারণত বলিরেখার কারণে বয়সের ছাপ পরে। তাই বলিরেখাগুলোতে লেবুর রস মেখে ১৫-২০মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করে :
পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খেলে মুখের দুর্গন্ধ, মাড়ির ব্যাথা, দাঁতের সমস্যা দূর করে।

নখ সুন্দর রাখে :
লেবুর রস দিয়ে নখ পালিশ করলে নখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। লেবুর রস মিশ্রিত পানিতে হাত-পা কিছুক্ষণ ডুবিয়ে রাখলে ভালো উপকার পাওয়া যায়।

ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে :
এক গবেষণায় ২০জন ব্যক্তির মধ্যে ১০ব্যক্তিকে খাবারের সাথে লেবু দেওয়া হয়েছিল এবং বাকি ১০জনকে লেবু ছাড়াই খাবার দেওয়া হয়েছিলো। এভাবে প্রায় বেশ কয়েকদিন খাবার খাওয়ার পর দেখা যায় যারা লেবু ছাড়াই খাবার খেয়েছে তারা লেবুসহ খাবার খাওয়ার তুলনায় ওজন বৃদ্ধি পেতে থাকে।
এই গবেষণার প্রেক্ষিতে বলা যায়, নিয়মিত লেবু খেলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে।

গর্ভবতী নারীদের সুস্থ রাখতে :
গর্ভবতী নারীদের জন্য বেশ উপকারী লেবুর রস মিশ্রিত পানি। নিয়মিত লেবুর রস মিশ্রিত পানি খেলে শুধু গর্ভবতী নারীর শরীর ই সুস্থ থাকে না, বরং গর্ভে অবস্থিত শিশুর জন্যও বেশ উপকারী। লেবু থেকে প্রাপ্ত ভিটামিন- সি ও পটাসিয়াম শিশুর হাড়, মস্তিষ্ক ও দেহের গঠন ঠিক রাখতে সহায়তা করে।

শ্বাসকষ্ট দূর করতে :
যাদের সামান্য শ্বাসকষ্ট সমস্যা আছে তারা নিয়মিত খাবারের আগে এক চামচ লেবুর রস খেলে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে পারে। মাইল্ড অ্যাজমা রোগীদের জন্য ঔষধের বিকল্প হিসেবে লেবুর রস ব্যবহৃত হয়।

সংক্ষেপে লেবুর উপকারিতাসমূহ তুলে ধরা হলো :

• লেবুতে রয়েছে ভিটামিন- সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যার ফলে মানবদেহের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।
• শরীরের PH এর ভারসাম্য ঠিক রাখতে প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন।
• বদহজম সমস্যা দূর করে হজম ঠিক রাখতে সহায়তা করে।
• ভিটামিন- সি সমৃদ্ধ লেবুতে পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস ইত্যাদিও রয়েছে।
• ভাইরাসজনিত ইনফেকশন সর্দি, কাশি ও জ্বর প্রতিরোধে সহায়তা করে।
• ব্রণ, দাদের দাগসহ ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে কার্যকরি ভূমিকা রাখে।
• লেবুর রস লিভার পরিষ্কার রাখে।
• পানিতে হালকা লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে জয়েন্ট ও পেশির ব্যাথা এবং দাঁতের ব্যাথা কমে।

লেবুর কয়েকটি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া :

• অ্যাসিডিটির সমস্যা আছে এমন ব্যক্তি অতিরিক্ত লেবুর রস খেলে বুক জ্বালা করে। তাছাড়া গ্যাসের সমস্যা দেখা দিতে পারে এবং পেট ফাঁপাসহ নানান সমস্যা দেখা অনুভূত হতে পারে।
• লেবুতে কারো আবার এলার্জির সমস্যা দেখা দেয়। তাই লেবু খেলে এমন সমস্যা দেখে দিলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।
• অতিরিক্ত লেবুর শরবত পান করলে পেট ও তলপেটে ব্যাথা অনুভূত হতে পারে। এমনকি শরীর দূর্বল হতে পারে।

যেকোনো বয়সের মানুষদের জন্য পরিমিত পরিমাণে লেবু খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য অধিক পরিমাণে ভালো। কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত লেবু খেলে স্বাস্থ্যের বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি হতে পারে। তাই লেবুর উপকারিতা জেনে পরিমিত পরিমাণে লেবুর রস ও শরবত খেয়ে ভালো উপকার পেতে পারি।

স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক আরো নিত্যনতুন আপডেট পেতে অবশ্যই জয়েন করুন জীবনধারার ফেসবুক গ্রুপ জীবনধারা (সুস্থ্য দেহ, সুস্থ্য মন) এ।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More