(দৃঢ়তা প্রদান ও চলন) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ৯ম অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

দৃঢ়তা প্রদান ও চলন হচ্ছে নবম-দশম শ্রেণির জীববিজ্ঞানের ৯ম অধ্যায়। দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায় থেকে সেরা বাছাইকৃত ৭টি সৃজনশীল প্রশ্ন এবং সে প্রশ্নগুলোর উত্তর সম্পর্কে আলোচনা করা হলো-

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : মানবদেহ অসংখ্য তন্ত্রের সমন্বয়ে গঠিত। দেহের কাঠামো গঠন, নির্দিষ্ট আকৃতি দান এবং বিভিন্ন অঙ্গকে বাইরের আঘাত রক্ষা করে একটি তন্ত্র। তন্ত্রটি ২০৬টি অস্থির সমন্বয়ে গঠিত।

ক. অস্থিসন্ধি কী?
খ. অস্থিসন্ধিস্থল থেকে বিচ্যুত না হওয়ায় কারণ লেখ।
গ. উদ্দীপকে আলোচিত তন্ত্রটির কাজ বর্ণনা কর।
ঘ. উদ্দীপকে আলোচিত তন্ত্রটির গঠন বৈশিষ্ট্য বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. অস্থিসন্ধি হচ্ছে দুই বা ততোধিক অস্থির সংযোগস্থল।

খ. দুই বা ততোধিক অস্থির সংযোগস্থলকে অস্থিসন্ধি বলে। প্রতিটি অস্থিসন্ধির অস্থিসমূহ একরকম স্থিতিস্থাপক রজ্জুর মতো বন্ধনী দিয়ে দৃঢ়ভাবে আটকানো থাকে, এ কারণে অস্থিগুলো সহজে সন্ধিস্থল থেকে বিচ্যুত হতে পারে না।

গ. উদ্দীপকে আলোচিত তন্ত্রটি হলো কঙ্কালতন্ত্র। নিচে কঙ্কালতন্ত্রের কাজ উল্লেখ করা হলো-

দেহ কাঠামো : কঙ্কাল মানবদহকে একটি নির্দিষ্ট আকার ও কাঠামো দান করে। এটি নিচের অঙ্গগুলোর সাথে উপরের অঙ্গগুলোর সংযুক্তি সাধন করে।

রক্ষণাবেক্ষণ ও ভারবহন : মস্তিষ্ক করোটির মধ্যে, মেরুরজ্জু মেরুদণ্ডে এবং হূৎপিণ্ড ও ফুসফুস বক্ষগহ্বরে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকে। পেশিসমূহ কঙ্কালের সাথে আটকে থাকে এবং দেহের ভারবহনে সম্পৃক্ত।

নড়াচড়া ও চলাচল : হাত, পা, স্কন্ধচক্র ও শ্রোণিচক্র নড়াচড়ায় সাহায্য করে। এ কাজে পেশিতন্ত্র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অস্থির সাথে পেশি আটকানোর ফলে অস্থি নাড়ানো সম্ভব হয় এবং আমরা চলাচল করতে পারি।

লোহিত রক্তকণিকা উৎপাদন : অস্থিমজ্জা থেকে লোহিত রক্তকণিকা উৎপন্ন হয়।

খনিজ লবণ সঞ্চয় : অস্থি খনিজ লবণ সঞ্চয় করে রাখে। খনিজ লবণ হচ্ছে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস ইত্যাদি। খনিজ লবণ সঞ্চয় করার ফলে অস্থি শক্ত ও মজবুত থাকে।

ঘ. উদ্দীপকে আলোচিত তন্ত্রটি হলো কঙ্কালতন্ত্র। অস্থি ও তরুণাস্থির সমন্বয়ে যে তন্ত্র দেহের কাঠামো গঠনের মাধ্যমে দেহকে নির্দিষ্ট আকৃতি প্রদান করে এবং অঙ্গ রক্ষা করে তাকে কঙ্কালতন্ত্র বলে। নিচে অস্থি ও তরুণাস্থির গঠন বৈশিষ্ট্য বিশ্লেষণ করা হলো-

অস্থি : অস্থি যোজক কলার রূপান্তরিত রূপ। এটি দেহের সর্বাপেক্ষা দৃঢ় কলা। অস্থির মাতৃকা বা আন্তঃকোষীয় পদার্থ এক প্রকার জৈব পদার্থ দ্বারা গঠিত। অস্থির মাতৃকা শক্ত ও ভঙ্গুর। মাতৃকার মধ্যে অস্থিকোষগুলো ছড়ানো থাকে। অস্থিকোষকে অস্টিওব্লাস্ট বলা হয়। এসব কোষ শাখা-প্রশাখাযুক্ত, দেখতে অনেকটা মাকড়সার মতো। অস্থি মূলত ফসফরাস, সোডিয়াম, পটাশিয়াম ও ক্যালসিয়ামের বিভিন্ন যৌগ দিয়ে তৈরি। এছাড়া অস্থিতে প্রায় ৪০-৫০ ভাগ পানি থাকে। জীবিত অস্থিকোষ ৪০% জৈব এবং ৬০% অজৈব যৌগ পদার্থ নিয়ে গঠিত। অস্থি বৃদ্ধির জন্য প্রচুর ভিটামিন ‘ডি’ ও ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার প্রয়োজন। এসব খাবারের অভাবে অস্থির স্বাভাবিক বৃদ্ধি ব্যাহত হয়।

তরুণাস্থি : তরুণাস্থি অস্থির মতো শক্ত নয়। এগুলো অপেক্ষাকৃত নরম ও স্থিতিস্থাপক। এটি যোজক কলার ভিন্নরূপ। এর কোষগুলো একক বা জোড়ায় জোড়ায় খুব ঘনভাবে স্থিতিস্থাপক মাতৃকাতে বিস্তৃত থাকে। তরুণাস্থি কোষগুলো থেকে কড্রিন নামক এক প্রকার শক্ত, ঈষদচ্ছ রাসায়নিক বস্তু নিঃসৃত হয়। মাতৃকা কন্ট্রিন দ্বারা গঠিত। এর বর্ণ হালকা নীল। জীবিত অবস্থায় তরুণাস্থি কোষের প্রোটোপ্লাজাম খুব স্বচ্ছ থাকে, নিউক্লিয়াসটি গোলাকার, কড্রিনের মাঝে গহ্বর দেখা দেয়। এগুলোকে ক্যাপসুল বা ল্যাকিউনি বলে। এর ভিতর কন্ট্রিওরাস্ট বা কন্ড্রিওসাইট থাকে। সব তরুণাস্থি একটি তন্তুময় যোজক কলা নির্মিত আবরণী দ্বারা পরিবেষ্টিত থাকে, একে পেরিকন্ড্রিয়াম বলে। আবরণটি দেখতে চকচকে সাদা। তরুণাস্থি সাধারণত সাদা, নীলাভ ও চকচকে হয়। আমাদের দেহে কয়েক রকম তরুণাস্থি আছে। তরুণাস্থি বিভিন্ন অস্থির সংযোগস্থল, কিংবা অস্থির কিছু অংশে উপস্থিত থাকে। যেমন- কানের পিনার তরুণাস্থি।

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : জীববিজ্ঞান ক্লাসে শিক্ষকের মাধ্যমে একদল শিক্ষার্থী মানুষের একটি কঙ্কাল দেখছিলো। তারা দেখল যে, আমাদের দেহের ২০৬টি অস্থি কীভাবে পরস্পরের সাথে সংযুক্ত থেকে দেহ কাঠামো গঠন করে। কিছু অস্থি সংযুক্তি সচল ও বিশেষ তরলযুক্ত হওয়ায় আমাদের চলন ক্রিয়া সহজ হয়েছে। শিক্ষক বললেন, ‘মানুষের চলনে অস্থি ও পেশির ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’

ক. নিউরন কী?
খ. স্বয়ংক্রিয় স্নায়ুতন্ত্র বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকে উল্লেখিত অস্থি সংযুক্তির বর্ণনা দাও।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লেখিত শিক্ষকের বক্তব্যের যথার্থতা নিরূপণ কর।

সমাধান : ক. নিউরন হচ্ছে স্নায়ুতন্ত্রের গঠন ও কার্যকরী একক।

খ. যেসব স্নায়ুতন্ত্রের কার্যকারিতার উপর মস্তিষ্ক ও মেরুরজ্জুর কোনো প্রভাব না থাকায় তারা স্বাধীন ও স্বতন্ত্রভাবে আপন কর্তব্য সম্পাদন করে তাকে
স্বয়ংক্রিয় স্নায়ুতন্ত্র বলে। দেহের ভেতরের অঙ্গসমূহ যেমন- হূৎপিণ্ড, অন্ত্র, পাকস্থলি, অগ্ন্যাশয় ইত্যাদির কাজ স্বয়ংক্রিয় স্নায়ুতন্ত্র দ্বারা পরিচালিত।

গ. উদ্দীপকে উল্লেখিত অস্থিসন্ধি হলো সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি। এখন সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি সম্পর্কে বর্ণনা করতে হবে।
বিঃদ্রঃ দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি সম্পর্কে বর্ণনা করা আছে।

ঘ. উদ্দীপকে উল্লেখিত শিক্ষকের বক্তব্য অর্থাৎ মানুষের চলনে অস্থি ও পেশির ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই বিষয়ে দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ : রাইফ মুরগির মাংস খাচ্ছিলো। তো খাওয়ার এক পর্যায়ে হাড়ের প্রান্তের নরম অংশ খেয়ে খুব স্বাদ পেল; কিন্তু পেছনের অংশটুকু খাওয়ার চেষ্টা করেও খেতে পারল না।

ক. সারকোলেমা কী?
খ. গেঁটেবাত হওয়ার কারণে শরীরে কী ধরনের সমস্যা দেখা দেয়?
গ. মানবদেহে উল্লেখিত নরম অংশটি হচ্ছে তরুণাস্থি। তরুণাস্থির গঠন উপাদান বর্ণনা কর।
ঘ. রাইফের হাড়ের খাওয়া অংশের সাথে খেতে না পারা অংশের দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ের আলোকে তুলনামূলক আলোচনা কর।

সমাধান : ক. পেশি কোষের আবরণকে সারকোলেমা বলে।

খ. গেঁটেবাত এক ধরনের বাত রোগ। অনেকদিন ধরে বাতজ্বরে ভুগলে এবং চিকিৎসা না করা হলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সাধারণত বয়স্করা এ রোগে আক্রান্ত হয়। কমবয়সী ছেলেদের বেলায় গিঁটে ব্যথা বা যন্ত্রণা হয়। অস্থিসন্ধিগুলো শক্ত হয়ে যায়। অস্থিসন্থি নাড়াতে কষ্ট হয়। গিঁট ফুলে যায়।

গ. মানবদেহের উল্লিখিত নরম অংশটি হলো তরুণাস্থি। তরুণাস্থির গঠন উপদান দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে বর্ণনা করা আছে।

ঘ. রাইফের খাওয়া অংশ হলো তরুণাস্থি এবং খেতে না পারা অংশটি হলো অস্থি। এই বিষয়ে দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : কাজলের মা মুরগির মাংস রান্না করলে সব সময় বুকের মাংসের টুকরাটি কাজলকে দেয়। কারণ সে ঐ মাংসের কুড়কুড়ে হাড়টি খেতে পছন্দ করে। পাঠ্যপুস্তক পড়ে সে জানতে পারে যে উক্ত কুড়কুড়ে হাড়টির নাম তরুণাস্থি।

ক. অস্টিওব্লাস্ট কী?
খ. আন্তঃকশেরুকীয় অস্থিসন্ধি কী ধরনের অস্থিসন্ধি ব্যাখ্যা কর।
গ. তুমি কীভাবে কাজলের পাঠ্যপুস্তকে পড়া অংশটি শনাক্ত করবে- ব্যাখ্যা কর।
ঘ. উক্ত অংশটি মানবদেহের জন্য কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. অস্থিকোষকে অস্টিওব্লাস্ট বলা হয়। এসব কোষ শাখা-প্রশাখাযুক্ত, দেখতে অনেকটা মাকড়সার মতো।

খ. আন্তঃকশেরুকীয় অস্থিসন্ধি একেবারে অনড় অস্থিসন্ধি। দুই বা ততোধিক অস্থির সংযোগস্থলকে অস্থিসন্থি বলে। প্রতিটি অস্থিসন্থির অস্থিসমূহ এক রকম স্থিতিস্থাপক রজ্জুর মতো বন্ধনী দিয়ে দৃঢ়ভাবে
আটকানো থাকে, ফলে অস্থিগুলো সহজে সন্ধিস্থল থেকে বিচ্যুত হতে পারে না।

গ. তরুণাস্থির বৈশিষ্টগুলো উল্লেখ করতে হবে।

ঘ. উদ্দীপকের উক্ত তরুণাস্থি মানবদেহের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তরুণাস্থি সম্পর্কে দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে বিশ্লেষণ করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : মানবদেহের কাঠামো একটি ঘর তৈরি কাঠামোর মতোই বিভিন্ন আকারের শক্ত খণ্ডাংশের সমন্বয়ে একটি সুন্দর রূপ লাভ করেছে। এরূপ কাঠামো মানুষকে অনেক সুবিধা দিয়ে থাকে।

ক. লিগামেন্ট কাকে বলে?
খ. সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি বলতে কী বুঝ?
গ. মানবদেহের শক্ত খণ্ডাংশগুলো গঠনকারী উপাদানগুলোর বর্ণনা দাও।
ঘ. মানবদেহের এরূপ কাঠামোর গুরুত্ব অপরিসীম- বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. লিগামেন্ট হচ্ছে পাতলা কাপড়ের মতো কোমল অথচ দৃঢ়, স্থিতিস্থাপক বন্ধনী দ্বারা, অস্থিসমূহ পরস্পরের সাথে সংযুক্ত।

খ. সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি হচ্ছে অস্থিসন্ধি ক্যাপসুল বা অস্থিসন্ধি আবরণী এবং সাইনোভিয়াল রস নামক এক ধরনের তৈলাক্ত পদার্থসহ অস্থিসন্ধি গহ্বর নিয়ে গঠিত। এ অস্থিসন্ধির অংশগুলো বেশ মজবুত আবরণী। অংশগুলোর মধ্যে হচ্ছে তরুণাস্থিতে আবৃত অস্থিপ্রান্ত, সাইনোভিয়াল রস এবং অস্থিবন্ধনী বা লিগামেন্ট বেষ্টিত।

গ. মানবদেহের শক্ত খণ্ডাংশগুলো গঠনকারী উপাদানগুলো হলো অস্থি। অস্থি সম্পর্কে দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে বর্ণনা করা আছে।

ঘ. মানবদেহে বিভিন্ন আকারের শক্ত খণ্ডাংশের কাঠামোটি ‘কঙ্কাল’। মানবদেহে কঙ্কালের গুরুত্ব দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : বাপ্পি খাসির মাংস দিয়ে ভাত খাওয়া অবস্থায় একটি হাড়ের প্রান্তের চকচকে নরম অংশ পেলো। সে অংশটি খেয়ে খুব স্বাদ পেল। কিন্তু পেছনের অংশটুকু শক্ত থাকায় অনেক চেষ্টা করেও সে খেতে পারল না।

ক. অস্থিসন্ধি কী?
খ. অঙ্গসঞ্চালনে পেশিতন্ত্রের ভূমিকা কী?
গ. মানবদেহে উল্লেখিত নরম অংশটি হচ্ছে তরুণাস্থি। তরুণাস্থির গঠন উপাদান বর্ণনা কর।
ঘ. বাপ্পি খাওয়া অংশের সাথে খেতে না পারা অংশের দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ের আলোকে তুলনামূলক আলোচনা কর।

সমাধান : ক. অস্থিসন্ধি হচ্ছে দুই বা ততোধিক অস্থির সংযোগস্থল।

খ. অঙ্গ সঞ্চালনে পেশিতন্ত্রের ভূমিকা : অস্স্থি দেহের কাঠামো কঙ্কাল গঠন করে। আর পেশিতন্ত্র এই কাঠামোর উপর আচ্ছাদন তৈরি করে। ঐচ্ছিক পেশি টেন্ডন নামক দৃঢ় ও স্থিতিস্থাপক অংশ দ্বারা অস্থিক আটকে রাখে। স্নায়বিক উত্তেজনা পেশির মধ্যে উদ্দীপনা জোগানোর ফলে পেশি সংকুচিত হয়। উদ্দীপনা অপসারণে পেশি পুনরায় শিথিল বা প্রসারিত হয়। এই সংকোচন ও প্রসারণের সহায়তায় সংলগ্ন অস্থির নড়াচড়া সম্ভব হয়। এভাবে পেশি কোনো অঙ্গকে প্রসারিত করে, দেহের কোনো অঙ্গকে ভাঁজ করে, প্রয়োজনে দেহের অক্ষ থেকে দেহের কোনো অঙ্গকে দূরে সরিয়ে দেয়, কোনো অঙ্গকে দেহের অক্ষের দিকে টেনে আনে, কোনো অঙ্গকে উপরের দিকে উঠায়, কোনো অঙ্গকে নিচে নামায় বা কোনো অঙ্গকে প্রধান অক্ষের চারপাশে, ডানে-বাঁয়ে ঘোরানো ইত্যাদি কার্য সম্পাদন করে।

গ. মানবদেহে উল্লেখিত নরম অঙ্গটি হচ্ছে তরুণাস্থি। দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে তরুণাস্থির গঠন উপাদান সম্পর্কে বর্ননা করা আছে।

ঘ. বাপ্পির খাওয়া অংশ তরুণাস্থি এবং খেতে না পারা অংশ অস্থি। দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে এ বিষয়ে আলোচনা করা আছে।

• (রেচন প্রক্রিয়া) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ৮ম অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : করিম কোরবানির ঈদের দিন খাসির গোস্ত দিয়ে ভাত খাচ্ছিলো। খাওয়ার এক পর্যায়ে একটি হাড়ের প্রান্তের চকচকে নরম অংশ পেলো। এই নরম অংশ খেয়ে খুব স্বাদ পেল। কিন্তু পেছনের অংশটুকু শক্ত থাকার কারণে অধিক চেষ্টার ফলেও খেতে পারল না।

ক. অস্টিওব্লাস্ট কী?
খ. সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি বলতে কী বোঝায়?
গ. মানবদেহে উল্লিখিত নরম অংশের গঠন উপাদান বর্ণনা কর।
ঘ. করিমের খাওয়া অংশের সাথে খেতে না পারা অংশের দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ের আলোকে তুলনামূলক আলোচনা কর।

সমাধান : ক. অস্থির কোষকে অস্টিওব্লাস্ট বলে।

খ. সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি হচ্ছে ‘সাইনোভিয়াল গহ্বর’ সমন্বিত অস্থিসন্ধি।
সাইনোভিয়াল গহ্বর সাইনোভিয়াল ফ্লুইড দ্বারা পূর্ণ থাকে। সাইনোভিয়াল অস্থিসন্ধি আবার নিশ্চল, ঈষদচ্ছ সচর্ল, পূর্ণসচল প্রভৃতি ধরনের হতে পারে। সাধারণত দেহের বাহ্যিক অস্থিসন্ধিগুলো সাইনোভিয়াল ধরনের হয়।

গ. মানবদেহের উল্লিখিত নরম অংশটি হলো তরুণাস্থি। তরুণাস্থির গঠন উপদান দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে বর্ণনা করা আছে।

ঘ. উদ্দীপকে করিমের খাওয়া অংশ হলো তরুণাস্থি আর খেতে না পারা অংশটি হলো অস্থি। এই বিষয়ে দৃঢ়তা প্রদান ও চলন অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More