(জীবের পরিবেশ) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ১৩শ অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

জীবের পরিবেশ হচ্ছে নবম-দশম শ্রেণির জীববিজ্ঞানের ১৩শ অধ্যায়। জীবের পরিবেশ অধ্যায় থেকে সেরা বাছাইকৃত ৭টি সৃজনশীল প্রশ্ন এবং সে প্রশ্নগুলোর উত্তর সম্পর্কে আলোচনা করা হলো-

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : সারিকা বাবার সাথে Animal Planet চ্যানেল দেখার সময় লক্ষ করল, বাঘ হরিণ ও জেব্রা ধরে খাচ্ছে। সে বাবাকে প্রশ্ন করে, এভাবে বাঘ হরিণ ও ব্রো খেলে বন শূন্য হয়ে যাবে। বাবা বললেন, এটি প্রাকৃতিক ঘটনা ও স্বনিয়ন্ত্রিত। সে আরও দেখল, কিছু লোক বনের গাছ কাটছে।

ক. প্লাঙ্কটন কাকে বলে?
খ. খাদ্যজাল বলতে কী বোঝ?
গ. প্রকৃতি স্বনিয়ন্ত্রিত— উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা কর।
ঘ. সারিকার দেখা মানবসৃষ্ট কারণটি পরিবেশের উপর কীভাবে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে তা যুক্তিসহ বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. পানিতে ভাসমান ক্ষুদ্র জীবদের প্লাঙ্কটন বলে।

খ. প্রকৃতিতে কোনো ইকোসিস্টেমে একাধিক খাদ্যশৃঙ্খল পরস্পর সংযুক্ত থাকে এবং পরস্পর সংযুক্ত একাধিক খাদ্যশৃঙ্খলের এই জটিল অবস্থাকে খাদ্যজাল বলে। প্রকৃতিতে খাদ্যশৃঙ্খলগুলো বিচ্ছিন্ন হয় না এবং বিভিন্ন খাদ্যশৃঙ্খল পরস্পর সম্পর্কযুক্ত।

গ. প্রতিটি বাস্তুসংস্থান মোটামুটিভাবে স্বনিয়ন্ত্রিত। প্রকৃতিতে নির্দিষ্ট কোনো জীব বেশি বাড়তে পারে না। জীবেরা পরস্পর পরস্পরের কাছে খাদ্য-খাদক শৃঙ্খলে বাঁধা। সহজে এর কোনো একটি অংশ একেবারে নির্মূ “ল হতে পারে না। সব সময় বিভিন্ন স্তরের জীব সম্প্রদায়ের সংখ্যার অনুপাত মোটামুটি অপরিবর্তিত থাকে। পরিবেশে নানা ধরনের পরিবর্তন ঘটলেও বহুদিন পর্যন্ত প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় থাকে। কোনো কারণে যদি একটি অঞ্চলে নির্দিষ্ট কোনো প্রাণীর সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে ওই বাস্তুসংস্থানের অন্যান্য জীবের সংখ্যা এমনভাবে পরিবর্তিত হবে যাতে সেগুলোর সংখ্যার ভারসাম্য বজায় থাকে।

ধরা যাক, আলোচিত বনভূমিতে বাঘ, হরিণ, গরু, শূকর প্রভৃতি বাস করে। হরিণ ও শূকর বাঘের খাদ্য। হরিণ ও শূকরের সংখ্যা বেড়ে গেলে বাঘ প্রচুর খাদ্য পাবে, ফলে বাঘের সংখ্যা বেড়ে যাবে। আবার বাঘের সংখ্যা বাড়লে অধিক সংখ্যায় হরিণ, শূকর মারা পড়বে। ফলে হরিণ ও শূকরের সংখ্যা কমে যাবে। হরিণ ও শূকরের সংখ্যা কমে গেলে বাঘের খাদ্যাভাব দেখা দেবে, বাঘের সংখ্যা হ্রাস পাবে। অপরদিকে বাঘের সংখ্যা হ্রাস পেলে হরিণ ও শূকরের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। এভাবে হ্রাস-বৃদ্ধির ফলে একটি এলাকার বাস্তুসংস্থানে বিভিন্ন জীবের সংখ্যা আপনা-আপনি নিয়ন্ত্রিত হয়।
তাই বলা যায়, বাস্তুসংস্থান একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ একক।

ঘ. উদ্দীপকে সারিকা দেখতে পেল যে কিছু লোক বনের গাছ কেটে ফেলেছে। গাছ কাটার ফলে পরিবেশে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে তা যুক্তিসহ বিশ্লেষণ করা হলো-
বনের বড় বড় গাছপালা কেটে ফেলা অংশে প্রাণীর সংখ্যা কমে যাবে। কারণ প্রতিটি পরিবেশের জীব ও অজীব উপাদানের মধ্যে রয়েছে এক নিবিড় সম্পর্ক। সূর্য থেকে পাওয়া শক্তি সবুজ উদ্ভিদ সালোকসংশ্লেষণের মাধ্যমে শর্করাজাতীয় খাদ্য তৈরি করে। এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই জড় জগৎ এবং জীবজগতের মধ্যে সংযোগ ঘটে।

উৎপাদক উদ্ভিদ দেহ থেকে এই শক্তি বিভিন্ন খাদ্যশৃঙ্খল ও খাদ্যজালের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়। উৎপাদক থেকে শুরু করে প্রতিটি খাদ্যশৃঙ্খল এমনভাবে ধাপে ধাপে সাজানো যে এর মধ্যে কোনো একটি স্তরের অভাব হলে ওই অংশের খাদ্যশৃঙ্খলের শক্তির প্রবাহ ব্যাহত হয়। যদি ওই অংশের গাছপালা কমে যায় তাহলে প্রাথমিক খাদক যারা আছে তারা উৎপাদক থেকে প্রয়োজনীয় শক্তি পাবে না। শক্তির ক্রমহ্রাসের ফলে ওই অংশের খাদ্যশৃঙ্খলে খাদকের সারির সংখ্যা খুব বেশি হবে না। ফলে প্রাণীর সংখ্যা কমে যাবে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : মিজানের বাড়ির সামনের পুকুরে শোল, বোয়াল, টাকিসহ অসংখ্য মাছ আছে। পুকুরের পানিতে শেওলা, পোকামাকড়, ক্ষুদিপানা ভেসে বেড়ায় সকালে বেড়াতে গিয়ে মিজান বক, মাছরাঙা, পানকৌড়িসহ অসংখ্য পাখি পুকুরপাড়ে দেখতে পায়। এসব পাখি পুকুরের আসার কারণ সম্পর্কে সে ভাবতে থাকে।

ক. খাদ্যজাল কী?
খ. বাস্তুতন্ত্রে বিয়োজকগুলো গুরুত্বপূর্ণ কেন ব্যাখ্যা কর।
গ. মিজানের দেখা জীবগুলোর বাস্তুসংস্থানিক অবস্থান সম্পর্কে লেখ।
ঘ. আলোচিত বাস্তুতন্ত্রে বিভিন্ন পাখির ভূমিকা সম্পর্কে নিজের ভাষায় লেখ।

সমাধান : ক. যখন বেশ কয়েকটি খাদ্যশিকল একত্রিত হয়ে একটি জালের মতো গঠন তৈরি করে তাকে খাদ্যজাল বলে।

খ. বাস্তুতন্ত্রের অন্যতম উপাদান হলো বিয়োজক। এ বিয়োজকগুলো বাস্তুতন্ত্রে অবস্থিত বিভিন্ন প্রাণীর মৃত্যু হলে তাদের পচিয়ে ফেলে। এ পচনের ফলে প্রাণীর মৃতদেহগুলো সহজেই মাটির সাথে মিশে যায়। এতে সুন্দর পরিবেশ বজায় থাকে। এজন্যই বাস্তুতন্ত্রের বিয়োজকগুলো এত গুরুত্বপূর্ণ।

গ. মিজানের দেখা জীবগুলোর বাস্তুসংস্থানটি হলো জলজ বাস্তুসংস্থান। এ সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে বিস্তর আলোচনা করা আছে।

ঘ. উদ্দীপকে বক, মাছরাঙা ও পানকৌড়ি পাখির কথা বলা হয়েছে। এসব পাখি সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ : দশম শ্রেণির ছাত্র সাজিদ গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে নানা বাড়িতে বেড়াতে যায়। বিকাল বেলা সে মামার সাথে একটি পুকুর পাড়ে বসে বিভিন্ন জলজ উদ্ভিদ ও প্রাণীকে গভীর মনোযোগ দিয়ে পর্যবেক্ষণ করে। সে পুকুরের পানিতে কয়েকটি বড় মাছ দেখে সেদিকে একটি ঢিল নিক্ষেপ করে।

ক. খাদ্যশিকল কাকে বলে?
খ. লাইকেন বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের বাস্তুতন্ত্রের জীবগুলো দ্বারা একটি শক্তির পিরামিড গঠন কর।
ঘ. সূর্য থেকে সাজিদের ঢিল নিক্ষেপ করা প্রাণীগুলোতে কীভাবে খাদ্যশক্তি আসে? বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. যখন খাদ্য শক্তি উৎপাদক থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্তরে খাদকদের মধ্যে প্রবাহিত হয়, তখন সেই প্রবাহকে একসাথে খাদ্যশিকল বলে।

খ. প্রকৃতিতে শৈবাল ও ছত্রাক মিলিত হয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন জাতের এক ধরনের উদ্ভিদ সৃষ্টি করে, যাকে বলা হয় লাইকেন। ছত্রাক বায়ু থেকে জলীয় বাষ্প সংগ্রহ করে এবং উভয়ের জন্য খনিজ লবণ সংগ্রহ করে। অন্যদিকে শৈবাল তার ক্লোরোফিলের মাধ্যমে নিজের ও ছত্রাকের জন্য শর্করাজাতীয় খাদ্য প্রস্তুত করে।

গ. উদ্দীপকের বাস্তুতন্ত্রটি হলো পুকুরের বাস্তুতন্ত্র। পুকুরের বাস্তুতন্ত্রের শক্তির পিরামিড জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে উল্লেখ করা আছে।

ঘ. সাজিদের ঢিল নিক্ষেপ করা পুকুরটি ছিলো একটি জলজ বাস্তুতন্ত্রের উদাহরণ। এ সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

• (জীবনীশক্তি) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ৪র্থ অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : আদর্শ, স্বনিয়ন্ত্রিত ও স্বয়ংসম্পূর্ণ বদ্ধ জলজ বাস্তুতন্ত্রের উদাহরণ পুকুর। প্রকৃতিতে নানা ধরনের বাস্তুতন্ত্র রয়েছে। এ সকল বাস্তুতন্ত্র উপাদানের তারতম্যের কারণে সৃষ্ট।

ক. সিমবায়োসিস কী?
খ. শক্তি পিরামিড বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের বাস্তুতন্ত্রকে স্বয়ংসম্পূর্ণ একক বলা হয় কেন ব্যাখ্যা কর।
ঘ. উদ্দীপক বাস্তুতন্ত্রের উৎপাদক থেকে সর্বোচ্চ স্তর পর্যন্ত একটি খাদ্যশিকল তৈরি করে এর পুষ্টি ও শক্তি প্রবাহ কীরূপ হবে— বিশ্লেষণ কর।

সমাধান : ক. জীবজগতে বিভিন্ন প্রকার গাছপালা ও প্রাণীদের মধ্যে বিদ্যমান জৈবিক সম্পর্কগুলোকে সহ-অবস্থান বা সিমবায়োসিস বলে।

খ. খাদ্যশিকলে যুক্ত প্রতিটি পুষ্টি স্তরের শক্তি সঞ্চয় ও স্থানান্তরের বিন্যাস ছককে শক্তির পিরামিড বলে। এরূপ পিরামিডে উৎপাদক স্তরে পরিবর্তী ট্রফিক লেভেলগুলোর চেয়ে শক্তির পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। পিরামিডে উচ্চ ট্রফিক, লেভেলের জীব নিম্ন ট্রফিক লেভেলের জীবদের চেয়ে শ্বসন ও অন্যান্য কাজে ক্রমবর্ধমান হারে অধিক শক্তি তাপশক্তি হিসেবে হারায়। এ পিরামিডে উৎপাদক ভূমিতে এবং চূড়ান্ত খাদক শীর্ষে অবস্থান করে।

গ. উদ্দীপকের বাস্তুতন্ত্রটি পুকুরের বাস্তুতন্ত্র। পুকুরের বাস্তুতন্ত্র সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

ঘ. উদ্দীপকের আলোকে পুকুরের বাস্তুতন্ত্রের উৎপাদক থেকে সর্বোচ্চ স্তর পর্যন্ত একটি খাদ্যশিকল হলো-
শৈবাল→জুয়োপ্লাঙ্কটন→ছোট মাছ→বড় মাছ→বক

এই বাস্তুতন্ত্রের পুষ্টি ও শক্তি প্রবাহচিত্রসহ বিশ্লেষণ জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : ছুটিতে অর্পা নৌকা করে মামা বাড়ি যাচ্ছিল। নৌকাটি খালের মধ্য দিয়ে যাওয়ার সময় সে পানিতে শাপলা, কচুরিপানা ইত্যাদি জলজ উদ্ভিদ লক্ষ করল। সে পানির মধ্যে বিভিন্ন মাছ ও অন্যান্য জলজ পতঙ্গের উপস্থিতিও প্রত্যক্ষ করল। আরও কিছুদূর যাওয়ার পর সে দেখল খালের পাশেই একটি শিল্প-কারখানা নির্মাণ করা হচ্ছে, যার বর্জ্য নিষ্কাশনের ড্রেন সরাসরি খালের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে।

ক. ট্রফিক লেভেল কাকে বলে?
খ. প্ৰজাতিগত বৈচিত্র্য বলতে কী বোঝায়?
গ. অর্পার পর্যবেক্ষণকৃত বাস্তুসংস্থানটির বর্ণনা দাও।
ঘ. উল্লেখিত শিল্পকারখানাটি বাস্তুসংস্থাটির ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে কি? মতামত দাও ।

সমাধান : ক. খাদ্য শিকলের প্রতিটি স্তরকে ট্রফিক লেভেল বলা হয়।

খ. প্ৰজাতিগত বৈচিত্র্য বলতে সাধারণত পৃথিবীতে বিরাজমান জীবসমূহের মোট প্রজাতির সংখ্যাকেই বোঝায়। কারণ, জীবসমূহ পৃথকযোগ্য বৈশিষ্ট্যেই এক প্রজাতি থেকে অন্য প্রজাতি ভিন্নতর। যেমন— বাঘের সাথে হরিণের আকার, স্বভাব, হিংস্রতা, সংখ্যা, বৃদ্ধির ধরন ভিন্ন হয়ে থাকে। এক প্রজাতির সাথে অন্য প্রজাতির বিভিন্ন বিষয়ে ভিন্নতাই প্রজাতিগত বৈচিত্র্য।

গ. অর্পার পর্যবেক্ষণকৃত বাস্তুসংস্থানটি একটি খালের বাস্তুসংস্থান। খালের বাস্তুসংস্থান সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

ঘ. উল্লেখিত শিল্পকারখানাটি বাস্তুসংস্থানটির ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। কারণ জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে পাওয়া যাবে।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : The environment of an organism means all the living and non-living components around it. Light, air, rain, storm, soil, water are so important in the life of organisms. The living components are most diverse.

A. What is ecosystem?
B. What do you mean by food chain?
C. Draw a food web of a forest.
D. Describe the energy flow in ecosystem.

অনুবাদ :
কোনো জীবের পরিবেশ বলতে এর চারপাশের সকল জীব এবং অজীব উপাদানকে বোঝায়। আলো, বাতাস, বৃষ্টি, ঝড়, মাটি, পানি ইত্যাদি জীবের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। জীবজ উপাদান বেশি বিস্তৃত।

ক. ইকোসিস্টেম কী?
খ. খাদ্যশিকল বলতে কী বোঝ?
গ. একটি বনের খাদ্যজাল অঙ্কন কর।
ঘ. রাস্তুতন্ত্রের শক্তিপ্রবাহ বর্ণনা কর।

সমাধান : ক. জড় খাদ্য উৎপাদনকারী সবুজ উদ্ভিদ, খাদ্যের জন্য উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল কিছু প্রাণী এবং মৃত জীবদেহ পরিবেশে মিশিয়ে দেওয়ার জন্য অণুজীবসমূহের মধ্যে আন্তঃসম্পর্ককে ইকোসিস্টেম বলে।

খ. যখন খাদ্য শক্তি উৎপাদক থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্তরের খাদকের মধ্যে প্রবাহিত হয়, তখন সেই প্রবাহকে একসাথে খাদ্যশিকল বলে। খাদ্যশিকল
বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। যেমন— শিকারজীবী খাদ্যশিকল, পরজীবী খাদ্যশিকল, মৃতজীবী খাদ্যশিকল ইত্যাদি৷

গ. একটি বনের খাদ্যজাল অঙ্কন করতে হবে। যা জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে পাওয়া যাবে।

ঘ. বাস্তুতন্ত্রের শক্তিপ্রবাহ জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

• (খাদ্য, পুষ্টি এবং পরিপাক) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ৫ম অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : জিনিয়ার একটি পেয়ারা বাগান আছে। সে লক্ষ করল বিভিন্ন রকম পাখি, কীটপতঙ্গ বাগানে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তার বড় বোন জীববিজ্ঞানের ছাত্রী বলল, ‘পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বিভিন্ন জীবের মধ্যে মিথস্ক্রিয়া ও আত্মনির্ভরশীলতা প্ৰয়োজন’।

ক. প্লাঙ্কটন কী?
খ. গ্রিন হাউস প্রতিক্রিয়া বলতে কী বোঝ?
গ. প্রাণীগুলোর সাথে পেয়ারাগাছের সম্পর্কটি কোন ধরনের তা ব্যাখ্যা কর।
ঘ. জিনিয়ার বড় বোনের উক্তিটির যথার্থতা মূল্যায়ন কর।

সমাধান : ক. পানিতে ভাসমান ক্ষুদ্র জীবদেরকে প্লাঙ্কটন বলে।

খ. গ্রিনহাউস গ্যাস (CO2, CH4, N2O) ইত্যাদি বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়াকে গ্রিন হাউস প্রতিক্রিয়া বলে। এ প্রতিক্রিয়ার ফলে আমাদের পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

গ. উদ্দীপকে উল্লেখিত প্রাণীগুলো পাখি, কীটপতঙ্গ, যা এক উদ্ভিদ থেকে অন্য উদ্ভিদ ঘুরে বেড়ায়। পেয়ারাগাছের সাথে সম্পর্ক খুব গভীর। এ সম্পর্কে জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে আলোচনা করা আছে।

ঘ. জিনিয়ার বড় বোনের উক্তিটির যথার্থতা জীবের পরিবেশ অধ্যায়ে পাওয়া যাবে।

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More