(গ্যাসীয় বিনিময়) নবম-দশম শ্রেনী : জীববিজ্ঞান ৭ম অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন-উত্তর

গ্যাসীয় বিনিময় হচ্ছে নবম-দশম শ্রেণির জীববিজ্ঞানের ৭ম অধ্যায়। গ্যাসীয় বিনিময় অধ্যায় থেকে সেরা বাছাইকৃত ৭টি সৃজনশীল প্রশ্ন এবং তার মধ্যে একটি সৃজনশীলের প্রশ্নসহ উত্তর সম্পর্কে আলোচনা করা হলো-

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : হিমোগ্লোবিন + অক্সিজেন →A (অস্থায়ী যৌগ) Aমুক্ত অক্সিজেন + হিমোগ্লোবিন

ক. গ্যাসীয় বিনিময় কাকে বলে?
খ: ব্রঙ্কাস বলতে কী বোঝ?
গ. মানবদেহে A যৌগটি তৈরির পদ্ধতি বর্ণনা কর।
ঘ. ‘মানবদেহে A যৌগঢ়ি উৎপাদনের গুরুত্ব অপরিসীম’—— আলোচনা করো।

সমাধান : ক. গ্যাসীয় বিনিময় বলতে অক্সিজেন ও কার্বন ডাইঅক্সাইড বিনিময়কে বোঝায়।

খ. শ্বাসনালি স্বরযন্ত্রের নিম্নাংশ থেকে ফুসফুসের নিকটবর্তী হয়ে ডান ও বাম দিকে দুটি শাখায় বিভক্ত হয়। এ শাখাগুলো যথাক্রমে বাম ও ডান ফুসফুসে প্রবেশ করে এগুলো ব্রঙ্কাস নামে পরিচিত।

গ. মানবদেহে A যৌগটি হলো অক্সিহিমোগ্লোবিন। মানবদেহে অক্সিহিমোগ্লোবিন তৈরির পদ্ধতি নিচে বর্ণনা করা হলো শ্বসনের সময় অক্সিজেন ব্যাপন প্রক্রিয়ায় ফুসফুস থেকে রক্তে প্রবেশ করে। রক্তে প্রবেশ করার পর অক্সিজেন মুক্ত অবস্থায় থাকে না। এর একটি বড় অংশ লোহিত রক্তকণিকার হিমোগ্লোবিনের সাথে যুক্ত হয়ে অক্সিহিমোগ্লোবিন নামক একটি অস্থায়ী যৌগ গঠন ‘কর। এ যৌগ গঠন রক্তরসে অক্সিজেনের পরিমাণের উপর নির্ভর করে। দেহে রক্ত পরিবহনের সময় বেশ কিছু পরিমাণে অক্সিজেন রক্তরস থেকে কলারস বা লসিকায় প্রবেশ করে। উল্লেখ্য যে, লসিকায় তখন অক্সিজেনের পরিমাণ কম থাকায় এ ক্রিয়াটি ঘটে। ফলে রক্তরসে অক্সিজেনের পরিমাণ কমতে দেখা দিলে তার সাথে সাথে হিমোগ্লোবিনের সাথে যুক্ত থাকা অক্সিজেন ছাড়তে থাকে।

এভাবে প্রথমে অক্সিজেন রক্তরস ও পরে লসিকা বা কোষরসে প্রবেশ করে। অক্সিজেন পরিবহনের সময় নিম্নলিখিত উল্লেখযোগ্য ঘটনার অবতারণা হয়। ফুসফুসের বায়ুথলি বা অ্যালভিওলি ও রক্তের চাপের পার্থক্যের জন্য অক্সিজেন ব্যাপন প্রক্রিয়ায় রক্তে প্রবেশ করে। ফুসফুস থেকে ধর্মনির রক্তে অক্সিজেন প্রবেশ করার পর রক্তে অক্সিজেন দু’ভাবে পরিবাহিত হয়। সামান্য পরিমাণ অক্সিজেন রক্তরসে দ্রবীভূত হয়ে পরিবাহিত হয়। বেশিরভাগ অক্সিজেনই হিমোগ্লোবিন লৌহ অংশের সাথে হালকা বন্ধনের মাধ্যমে অস্থায়ী যৌগ গঠন করে, যা অক্সিহিমোগ্লোবিন নামে পরিচিত।

ঘ. মানবদেহে অক্সিহিমোগ্লোবিন উৎপাদনের গুরুত্ব অপরিসীম। নিচে অক্সিহিমোগ্লোবিন উৎপাদনের গুরুত্ব গ্যাসীয় বিনিময় অধ্যায়ের আলোকে বিশ্লেষণ করা হলো-
অক্সিহিমোগ্লোবিন মূলত দেহে অক্সিজেন ও কার্বন ডাইঅক্সাইড পরিবহন করে। রক্তের অক্সিহিমোগ্লোবিন মাধ্যমে অক্সিজেন দেহকোষে পৌঁছায় এবং অক্সিহিমোগ্লোবিনের মাধ্যমে কার্বন ডাইঅক্সাইড দেহের বাইরে নির্গত হয়।
হিমোগ্লোবিন + অক্সিজেন → অক্সিহিমোগ্লোবিন (অস্থায়ী যৌগ)

অক্সিহিমোগ্লোবিন → মুক্ত অক্সিজেন + হিমোগ্লোবিন রক্ত কৈশিকনালিতে পৌঁছার পর অক্সিজেন পৃথক হয়ে প্রথমে লোহিত রক্তকণিকার আবরণ, কৈশিকনালির প্রাচীর ভেদ করে লসিকায় প্রবেশ করে এবং অবশেষে লসিকা থেকে কোষ আবরণ ভেদ করে কোষে পৌছে। খাদ্য জারণ বিক্রিয়ায় কোষে কার্বন ডাইঅক্সাইড তৈরি হয়। এই কার্বন ডাইঅক্সাইড প্রথমে কোষ আবরণভেদ করে লসিকাতে প্রবেশ করে এবং লসিকা থেকে কৈশিকনালির প্রাচীর ভেদ করে রক্তরসে প্রবেশ করে। কার্বন ডাইঅক্সাইড প্রধানত বাইকার্বনেট রূপে রক্ত সঞ্চালনের মাধ্যমে পরিবাহিত হয়ে ফুসফুসে আসে, সেখানে কৈশিকনালি ও বায়ুথলি ভেদ করে দেহের বাইরে নির্গত হয়।

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : সিঁথির বয়স ৫। মাত্র হাম থেকে সুস্থ হলো। এরই মধ্যে সে বৃষ্টিতে ভিজে পানিতে খেলা করে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা লাগিয়েছে গায়ে জ্বর ও আছে। তার মা তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে সিঁথিকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

ক. প্লুরা কী?
খ. ব্রঙ্কিওল বলতে কী বোঝ?
গ. সিঁথি যে রোগে আক্রান্ত হয়েছে সে রোগের লক্ষণসমূহ ব্যাখ্যা কর।
ঘ. সিঁথির রোগটি আর কোন রোগের পর হতে পারে, সে রোগের কারণ ও প্রতিকারের সাদৃশ্য বৈসাদৃশ্য গ্যাসীয় বিনিময় অধ্যায়ের আলোকে বিশ্লেষণ কর।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ : যক্ষ্মা একটি বায়ুবাহিত সংক্রামক রোগ।

ক. শ্বসনের সমীকরণটি লিখ।
খ. মানুষের শ্বসনতন্ত্রের অঙ্গগুলোর নাম লিখ।
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত রোগটির লক্ষণ আলোচনা কর।
ঘ. এই রোগের প্রতিকার বিশ্লেষণ কর।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : মানিক মিয়া কারখানায় দিনমজুরের কাজ করে। বেশ ক’দিন ধরে সে শ্বাসকষ্ট, কাশি ও কাশির সময় প্রচণ্ড বুকে ব্যথা, অনেক সময় কাশির সাথে কফ বের হয়। এখন শক্ত খাবার খেতে পারে না। সরকারি হাসপাতালে গেলে ডাক্তার তাকে পরামর্শমতো চলতে এবং ঔষধ সেবনের জন্য বলেন।

ক. অক্সিহিমোগ্লোবিন কী ধরনের যৌগ?
খ. রাতে বড় গাছের নিচে ঘুমালে শ্বাসকষ্ট অনুভূত হয় কি কারণে?
গ. মানিক মিয়ার আক্রান্ত রোগটি নির্ণয় কর।
ঘ. মানিক মিয়ার প্রতি ডাক্তারের উপদেশগুলো গ্যাসীয় বিনিময় অধ্যায়ের আলোকে যথাযথ বিশ্লেষণ কর।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : ফুসফুস শ্বসনতন্ত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। অনেক সময় অসাবধানতার কারণে নানা জটিল রোগ দেখা দেয়। রোগগুলোর কারণ, প্রতিকার ও লক্ষণ জানা থাকলে মৃত্যু ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায়।

ক. ব্রঙ্কাইটিস কাকে বলে?
খ. নিউমোনিয়া কোন ভাইরাসের আক্রমণে হয়? এর লক্ষণ কি?
গ. যক্ষ্মা রোগ কীভাবে নির্ণয় করা হয় এর প্রতিকার লিখ।
ঘ. ফুসফুসের ক্যান্সারের লক্ষণ ও প্রতিকার লিখ।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : মতিন সাহেব দীর্ঘদিন ডায়াবেটিকসে ভুগছেন। কিন্তু ঠিকমত ঔষধ সেবন না করায় প্রায়ই তার রক্তে শর্করার পরিমাণ বেশি থাকে। তার স্ত্রীর দেহে Mycobacterium tuberculosis নামক জীবাণুর সংক্রমণ দেখা যায়। ডাক্তার মতিন সাহেবকে তিনটি D মেনে চলতে বলেন এবং তার স্ত্রীকে নিয়মিত ছয়মাস ঔষধ খাওয়ার পরামর্শ দেন।

ক. বায়োলজিক্যাল ক্লক কী?
খ. উদ্ভিদের অভিকর্ষ উপলব্ধি কী?
গ. মতিন সাহেবের স্ত্রীর রোগটির বর্ণনা ও লক্ষণ লিখ।
ঘ. মতিন সাহেবকে দেওয়া পরামর্শটির মূল্যায়ন কর এবং এর গুরুত্ব লিখ।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : ধূমপানে আসক্ত মি. জাহিদ শ্বাস-প্রশ্বাসের গুরুতর সমস্যা নিয়ে ডাক্তারের কাছে গেলেন। ডাক্তার তার ফুসফুসের X-Ray রিপোর্ট দেখে তাকে কিছু ঔষধ দিয়ে ধূমপান না করার জন্য কঠোর হুঁশিয়ারি দিলেন।

ক. কোন ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে যক্ষ্মা হয়?
খ. অস্টিওপোরেসিস বলতে কী বুঝ?
গ. উদ্দীপকে উল্লেখিত শ্বসন অঙ্গটির গঠন ব্যাখ্যা কর।
ঘ. উদ্দীপকে বর্ণিত আসক্তিটি মি. জাহিদের জীবনে কী ধরনের পরিণতি ডেকে আনতে পারে? গ্যাসীয় বিনিময় অধ্যায়ের আলোকে মতামত বিশ্লেষণ কর।

SSC-2022 এর সর্ট সিলেবাসে নিজেকে সর্বাধিক প্রস্তুতির চুড়ায় নিয়ে যেতে ভর্তি হয়ে যাও টেন মিনিট স্কুলের ক্র‍্যাস কোর্সে 👉 এসএসসি ক্র্যাশ কোর্স ২০২২

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More